রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ ব্যর্থ মনিরুজ্জামান মনির

করোনাকালীন সময়েও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশ রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ ব্যর্থ বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি।

রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ ব্যর্থ  মনিরুজ্জামান মনির

করোনাকালীন সময়েও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশ রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ ব্যর্থ বলে দাবি করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটি।

আজ ৩০ জুন ২০২১ইং বুধবার দুপুরে সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করেন সংগঠনটির সভাপতি মোঃ মনিরুজ্জামান মনির।

বিজ্ঞপ্তিতে মনিরুজ্জামান মনির বলেন, “সারাদেশের রেলওয়ে হাসপাতালগুলোর মাধ্যমে রেল শ্রমিক-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে প্রতি বছর প্রয়োজন কমপক্ষে ২ কোটি টাকা। অথচ বরাদ্দ করা হচ্ছে ৪০-৪৫ লাখ টাকা। বাজেট স্বল্পতার কারণে সারাদেশের রেলওয়ে হাসপাতালগুলো আজ নিজেরাই রোগীতে পরিণত হয়েছে। রেলওয়ের অসহায় শ্রমিক-কর্মচারীদের চিকিৎসা সেবার একমাত্র ভরসা রেলওয়ে হাসপাতালগুলোর অবস্থাই আজ বেহাল। আধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জাম ও পর্যাপ্ত চিকিৎসক-নার্স-স্টাফ না থাকায় রোগীরা সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।”

তিনি আরও বলেন, “বর্তমানে দেশে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ধরণ ছড়িয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় বিশেষজ্ঞরা করোনার তৃতীয় ঢেউ এর আশঙ্কা করছেন। সরকারও সারাদেশে সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা করেছে। যাত্রী পরিবহন বন্ধ হলেও মালবাহী ট্রেন চালু থাকায় জীবনের ঝুঁকি নিয়েই রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীরা কাজ করলেও তাদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে পারছে না রেলপথ মন্ত্রণালয়। এক্ষেত্রে রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে বলে আমরা মনে করি।”

তিনি বলেন, “উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা কেউ রেলওয়ের হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা সেবা নেন না। তারা দেশ-বিদেশের নামী-দামী হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। তাদের চিকিৎসার প্রয়োজন পড়ে না বলেই কি হাসপাতালগুলোর এ দুরাবস্থা? যাদের কঠোর পরিশ্রমে রেলপথ সচল থাকে তাদেরই স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে রেলপথ মন্ত্রণালয় আজ সম্পূর্ণ ব্যর্থ। আইবাস++ সিস্টেম জটিলতার কারণে রেলওয়ের শ্রমিক-কর্মচারীরা করোনাকালীন সংকট মুহুর্তে যথাসময়ে বেতন-ভাতা-পেনশন পাচ্ছেন না। তার উপর রেলওয়ে হাসপাতালগুলোর স্বাস্থ্যসেবাও অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।” 

বাংলাদেশ রেলওয়ে পোষ্য সোসাইটির সভাপতি রেলওয়ের হাজার হাজার শ্রমিক-কর্মচারীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে অবিলম্বে পর্যাপ্ত বাজেট বরাদ্দ করে রেলওয়ে হাসপাতালগুলোতে জনবল নিয়োগ ও আধুনিক চিকিৎসা সরঞ্জামাদি ক্রয় করে আধুনিক হাসপাতালে রূপান্তরের মাধ্যমে রেলের শ্রমিক-কর্মচারীদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণের দাবি জানান।