কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়ে বাড়াতে চীনের কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি

কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়ে বাড়াতে চীনের কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক:কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণে চীনের কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সাড়ে ১২টায় বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) সদর দফতরে এ চুক্তি সই হয়।

চুক্তিতে সই করেন বেবিচকের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মোহাম্মদ মহিদুর রহমান এবং চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন করপোরেশনের (সিসিইসিসি) অথরাইজড রিপ্রেজেন্টিভ ইয়াং জিজুন।

সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে কক্সবাজার বিমানবন্দর ও চাংজিয়াং ইচাং ওয়াটার ইঞ্জিনিয়ারিং ব্যুরো (সিওয়াইডব্লিউসিবি) চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কনস্ট্রাকশন করপোরেশন-জেভি’র মধ্যে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বেবিচকের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কক্সবাজার বিমানবন্দর রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পটি ৬ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদন করেন। কক্সবাজার বিমানবন্দরের মহেশখালী চ্যানেলের দিকে রেক্লেইম্নে প্রক্রিয়ায় আরও এক হাজার ৭০০ ফুট রানওয়ে সম্প্রসারিত হবে।

কক্সবাজার বিমানবন্দর বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিমানবন্দরগুলোর মধ্যে অন্যতম। বর্তমানে এ বিমানবন্দরে দৈনিক যাত্রীবাহী ও কার্গোবিমান চলাচল বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের পর্যটনশিল্প বিকাশে এবং সমুদ্র উপকূলীয় এলাকায় প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় আকাশপথে দ্রুত যোগাযোগ ও সুপরিসর বিমান চলাচল উপযোগী করার লক্ষ্যে বিদ্যমান রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পটি গৃহীত হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বিমানবন্দরের রানওয়ে সম্প্রসারণ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে সুপরিসর বিমান তথা বি-৭৭৭-৩০০ ইআর, বি-৭৪৭-৪০০ পরিচালনায় সুবিধা হবে। ফলে এ বিমানবন্দর থেকে সাধারণ যাত্রীর পাশাপাশি আন্তর্জাতিক টুরিস্টের যাতায়াত বৃদ্ধি পাবে। ফলে পর্যটন খাতে বৈদেশিক মুদ্রার আয় বৃদ্ধি পাবে।